সিনিয়র আপু যখন বউ (পর্ব-১৬)

December 22, 2020 | By admin | Filed in: সিনিয়র আপু যখন বউ.

সিনিয়র আপু যখন বউ (পর্ব-১৫)

★5 মিনিট হয়ে গেল আমার চোখ বন্ধু,,,, আপুর কোন রেসপন্স পাচ্ছিনা,,, চোখ খুলে তাকালাম,,, আপুকে কোথাও দেখতে পাচ্ছি না,,,, শাকচুন্নি আবার গেলে কোথায়,,, এই শাকচুন্নি কে নিয়ে তো মহা টেনশনে আছি,,, শাকচুন্নি আমাকে থাপ্পড় না দিয়ে কোথায় চলে গেল,,,
আমি বাইক থেকে নেমে খুঁজতে যাবো,,,
তখন দেখি আপু একটা ফুলের দোকান থেকে কি যেন কিনছে?

৫ মিনিট পরে আপু দুটো হাত পিছনে নিয়ে আমার সামনে এসে দাড়ালো,,,, আমাকে বলল,, বাইক থেকে নেমে আমার সামনে স্টেট হয়ে দাড়া,,, আমি আপুর কথা মত তার সামনে এসে সোজা হয়ে দাঁড়ালাম,,,,

হঠাৎ করে আপু হাঁটু গেঁড়ে বসে পড়ল,,,তার দুটো হাত পিছন থেকে সামনে আনলো,,, দেখি হাতের ভিতর ৪ ৫ টা লাল গোলাপ,,,

আপু ফুল গুলোর সামনে এনে বলতে শুরু করল,,,,, এই পিচ্চি লাল বান্দর,,, তোকে আমার মনের গভীরে জায়গা দিয়ে ফেলেছি অনেক আগে,,,, আমার প্রতিটি দিনের সিক্ত সকাল শুরু হয় তোকে ভেবে,,,, আমার প্রতিটি রজনীর শেষ হয় তোকে ভেবে,,,,, আমি জানি তুই আমার ছোট,,, কিন্তু কি করবো বল,,,, আমার এই অবুঝ মন যে মানে না,,,, অনেক চেষ্টা করেছি মন কে ফিরিয়ে আনতে,,, কিন্তু পারিনা,,, তোকে না দেখলে কেমন যেন অস্থির অস্থির লাগে,,,,,, তোর সাথে কথা বলতে না পারলে,,,, কেমন জানি বুকের ভিতর একটা চিনচিন ব্যাথা শুরু হয়।।। তোর সাথে কাউকে দেখলে আমি সহ্য করতে পারিনা,,,,, তুই কি আমাকে ভালবাসবি,,, তোর ছোট্ট দুটি হাত ধরে বাকিটা জীবন চলার অধিকার দিবি””’ তোর বুকে মাথা রেখে ভরা চাঁদের জোসনা দেখার অধিকার দিবে। তোর সকাল বেলার ঘুম ভাঙ্গানোর কোকিল করবি””” তোর অগোছালো জীবনটাকে গোছানোর অধিকার দিবি”””” বৃষ্টি রাতে তোর হাত দুটি ধরে নিঝুম বৃষ্টিতে ভিজার অধিকার দিবি,,, মধ্য রাতে তোর ঘুম ভাঙ্গিয়ে বলবো গল্প করার জন্য সে অধিকারটুকু দিবি।। শেষ বিকালে বারান্দায় দাঁড়িয়ে এক কাপে দুজনে কফি খাওয়ার অধিকার দিবে,,,, মাঝে মাঝে রাগ উঠে গেলে তোকে অনেক ঝাড়ি দিব সে ঝাড়ি উপেক্ষা না করে আমাকে কি আদর করে বুকে টেনে নিবি,,,

তোর সুখ দুঃখ কষ্ট গুলো ভাগ করে নেওয়ার অধিকার টুকু দিবে,,,, কথা দিচ্ছি জীবনের শেষ মুহূর্ত পর্যন্ত তোর সাথে থাকবো,,,,

((((শাকচুন্নি থাপ্পড়ের কথা বলিস না কেন,,, তুই তো আমাকে থাপ্পড় না দিলে তোর ভাত হজম হয় না,,, তোকে ভালবাসলে তো গালের মধ্যে আলগা তোলা লাগাতে হবে??))))))

আপু একনাগাড়ে কথাগুলো বলতেছে? আর আমি হতভম্ব হয়ে দাঁড়িয়ে আছি,,, ভরা রাস্তার মানুষ আমাদের দিকে অবাক দৃষ্টি নিয়ে তাকিয়ে আছে,,, হয়তো এক ঘটনা বিরল,,,, আমি ভাবতেও পারিনি,,, আপু মাঝ রাস্তায় এতো মানুষের সামনে হাটুগেড়ে বসে আমাকে প্রপোজ করবে?

সারা জীবন শুনেছি বা দেখেছি ছেলেরা মেয়েদেরকে প্রপোজ করে আজ জীবনের প্রথম দেখলাম,,,, কোন এক সুন্দরী রূপসী মেয়ে,, মানুষ ভরা রাস্তায় তার চেয়ে বয়সে ছোট কোনো ছেলেকে প্রপোজ করছে। এখন এখানে যদি কোন সাংবাদিক বা মিডিয়ার লোক থাকতো তাহলে আমি নিশ্চিত গ্রিনিজবুকে অপুর নাম উঠে যেত।

(আপু) কি হল কথা বলিস না কেন?
(আমি) কি বলবো?
(আপু) কি বলবো মানে আমি আধা ঘন্টা ধরে ভরা রাস্তা মানুষের মধ্যে তোকে প্রোপজ করছি,,,,আর তুই বলছিস কি করবো?

(আমি) এখনো ভালবাসি বলো নাই তো।
(আপু) লুচ্চা ছেলে আমি মেয়ে হয়ে প্রপোজ করছি দেখে ভাব মারছিস।

(আমি) ভাব মারবো কেন তুমি তো এখনও আমাকে বল নাই ভালোবাসি?
(আপু) আচ্ছা ঠিক আছে বলছি,, I love you পিচ্চি I love you so much লাল বান্দর?

(আমি) এটা কোন প্রপোজ হলো।
(আপু) বদমাশ ছেলে আর কিভাবে বলব?
(আমি) তুমি বান্দর বল কেন,,,,, ভালো ভাবে প্রপোজ কর।
(আপু) তোর প্রপোজ এর নিকুচি করি,,, করব না তোকে প্রপোজ?
(আমি) আচ্ছা ঠিক আছে তাহলে আমি যাই?
(আপু) যাবি মানে আধাঘণ্টা ধরে তোকে প্রপোজ করছি,,, তোকে এত সহজে যেতে দিব?

(আমি) তাহলে ভালো ভাবে প্রপোজ কর?
(আপু) আচ্ছা ঠিক আছে করছি,,, I Love You,I Love You So Much পিচ্চি?

(আমি) ইংরেজিতে বল কেন বাংলায় বলো?
(আপু) তোকে কিন্তু খেয়ে ফেলবো এখন আমি?
(আমি) পরে খেয়েও আগে প্রপোজ কর?
(আপু) আমি তোকে ভালোবাসি? অনেক বেশি ভালোবাসি?

আমি আপুর হাত থেকে ফুলগুলো নিলাম,,

(আপু) কি হলো ফুলগুলো নিয়ে দাঁড়িয়ে আছিস কেন,,, আমাকে জড়িয়ে ধর।

(আমি) আরে আমার লজ্জা করছে তো,, সবাই আমাদের দেখছে?
(আপু) কুত্তা তোর কিসের লজ্জা’ দুই পুরুষ মানুষ,,, আমার লজ্জা করছে তাড়াতাড়ি জড়িয়ে ধর শয়তান,,,,

আমি জড়িয়ে ধরবো কি আপু ঐ আমার বুকে মুখ লুকালো?

(আপু) তুই আমাকে কখনো কষ্ট দিবি না তো?
আমি) কষ্ট দেবো কেন,,, আমিও যে তোমাকে খুব ভালবেসে ফেলেছি?

(আপু)তাহলে আর মেয়ের দিকে তাকাতে পারবিনা ইটিশ পিটিশ করতে পারবি না?

(আমি) আচ্ছা কোন মেয়ের দিকে তাকাবো না ইটিশ পিটিশ করবো না? এখন একটা কথা বলবো।

(আপু)কি?
(আমি) তুমি যে বলেছিলে তোমার পিচ্চি বয়ফ্রেন্ডের নামের প্রথম অক্ষর গুলো F A F অক্ষর গুলো কি আমার নামের?

(আপু) বুদ্ধ তোর না হলে কার,,, যেদিন তোর নামের প্রথম অক্ষর গুলো বলেছিলাম,,, সেদিন ওই তোকে বলতে চেয়েছিলাম। কিন্তু সাহস হয়নি।

(আমি)কেন?
(আপু) তুই যদি আমাকে ফিরিয়ে দিস? তাহলে আমি সহ্য করতে পারবো না?
(আমি) তাহলে এখন কিভাবে সাহস করে বললে?
(আপু) কারণ এতে দিনে আমিও জেনেছি তুই ও আমাকে ভালবাসিস,,, তাই আর অপেক্ষা না করে সাহস করে বলে
ফেললাম,,,, আমি মেয়ে হয়ে প্রপোজ করেছি সেজন্য ভাব নিস না?
(আমি) পাগল ভাব নিব কেন,,, তুমি প্রপোস না করলে আমি ওই তোমাকে প্রপোজ করতাম?
(আপু) কখন করতি?
(আমি) তোমার জন্মদিনে?
(আপু) আমি এতদিন অপেক্ষা করতে পারতাম না,,, তাই আজকে ঐ বলে ফেলেছি””” এখন কথা না বলে শক্ত করে জড়িয়ে ধর?

আমি আপুকে শক্ত করে জড়িয়ে ধরলাম,,, হায় হায় রাস্তার সব লোক আমাদের ভিডিও করতেছে?

(আমি) এই ছাড়ো?
(আপু) ছাড়বো কেন?
(আমি) আরে রাস্তার সব লোক আমাদের ভিডিও করতেছে?
(আপু) কি বলিস?
(আমি)হ্যা?

আপু আমার বুক থেকে মাথা তুলল,,হ্যা সত্যি ঐ তো,,,, আপু লজ্জা পেয়ে গেল?

তাড়াতাড়ি আমার বাইকে ওঠো আপু বাইকে উঠে বসলো আমি বাইক জোরে টান দিলাম,,,,, শাকচুন্নি আমাকে আষ্টেপৃষ্ঠে জড়িয়ে ধরেছে,,,,, আমার বাইক চালাতে কষ্ট হচ্ছে।

(আমি) আরে এভাবে ধরেছে কেন,,,, আমি বাইক চালাতে কষ্ট হচ্ছে তো?
(আপু) বাইক চালাতে হবে না।
(আমি)তাহলে বাসায় যাবো কি কিরে?
(আপু)যেতে হবেনা?
(আমি)আরে বাবা একটু হালকা করে জরিয়ে ধর এতো শক্ত করে কেউই জড়িয়ে ধরে?

(আপু)হালকা করে জরিয়ে ধরতে পারবোনা?

কি আর করার শাকচুন্নির সাথে পারা যাবে না? আমি বাইক চালাচ্ছি,, হঠাৎ একটা দোকানের সামনে এসে বলল বাইক থামা?
(আমি)কেনো?
(আপু) আমি আইসক্রিম খাবো?
(আমি) টাকা নাই আমার কাছে?
(আপু) তোকে টাকার কথা বলছি?
(আমি)না?
(আপু) তাহলে টাকার কথা বললি কেন?

(আমি)সরি?

শাকচুন্নি 1000 টাকার একটা নোট বের করে আমার হাতে দিলো,,, আমি দোকান থেকে দুটো আইসক্রিম নিয়ে আসলাম?
শাকচুন্নির হাতে দুধ আইসক্রিম দিলাম?

(আপু) দুইটা আমাকে দিচ্ছিস কেন,,,আর আমার বাকি টাকা কয়?
(আমি) কিসের টাকা?
(আপু) কিসের টাকা মানে এক হাজার টাকার নোট দিয়েছে দুটা আইস ক্রিম এর দাম ৪৫+৪৫=৯০টাকা আরো ৯১০দে?

হায় আল্লাহ শাকচুন্নি তো হার কিপটা টাকা গুনে গুনে হিসাব করে,,, আমি তো মনে করেছি শাকচুন্নি বুঝি এ টাকা নেবে না?

কি আর করবো পকেট থেকে খুলে ৯১০টাকা শাকচুন্নির হাতে দিলাম?

গণ্ডি মেয়ে কিছু বলে নাই,,, শুধু একটা মুচকি হাসি দিয়েছে,,,

(আপু) এই নে ধর((( একটা আইসক্রিম আমার দিকে বাড়িয়ে?

আমি শাকচুন্নির হাত থেকে আইসক্রিম টা নিলাম দুজনে আইসক্রিম খাচ্ছি,,, হঠাৎ করে শাকচুন্নির দিকে খেয়াল করলাম,,,
শাকচুন্নি আইসক্রিম খাচ্ছে পিচ্চি বাচ্চারদের মত আইসক্রিম ঠোঁটে লেগে আছে,,,এখন আপু কে ঠিক পিচ্চি বাচ্চাদের মত লাগছে,,, আপুর এই দৃশ্যটা দেখে মনটা কি জানি করতে যাচ্ছে,,,, শুধু তার ঠোঁটের দিকে আকর্ষণ করছে?

(আপু) কি হলো এভাবে তাকিয়ে আছিস কেন?
(আমি) তোমার ঠোঁটে আইসক্রিম লেগে আছে তারাতারি মুছো?
(আপু)কেন?
(আমি) আমার কি জানি করতে মন চাচ্ছে?
আপু একটু লজ্জা পেয়ে গেল,,, লুচ্চা ছেলে চুপ কর?
(আমি) তাড়াতাড়ি মুছে ফেলো না।
(আপু)না মুছবোনা?
(আমি) তাহলে কিন্তু?
(আপু) তাহলে কি হেহ””” বদমাশ ছেলে আমার কাছে আসবি না বলে দিলাম?
(আমি) তোমার ঠোঁট আমাকে আকর্ষণ করে টানছে?

আমি আপুর কাছে যাবো তারাতারি আপু ঠোট মুছে ফেললো?
(আমি) কি হলো মুছলা কেনো,,,আমি মুছে দিতাম?
(আপু)এহহি শখ কত,,,, চল এখন যাই?

আমি আর কিছু না বলে বাইকে উঠলাম বাইক আপুদের বাসার সামনে এসে পৌঁছলে,,,

(আপু) চল ভেতরে চল দুপুরে লাঞ্চ করে তারপর বাসায় যাবি?

(আমি)না ভিতরে যাবো না আম্মু হয়তো টেনশনে আছে আমাকে নিয়ে,,, দুদিন হয়েছে বাসা থেকে গিয়েছে আম্মুকে একটা ফোন ও দেয়নি?

(আপু) আচ্ছা ঠিক আছে দুপুরে আমাদের বাসায় এসে খাবি?

(আমি) দুপুরে কেন,, কালকে থেকে তিন বেলা তোমাদের বাসায় খাই?
(আপু) তিন বেলা কেন?
(আমি) দুদিন পরে সম্পর্ক দুটো হবে তাই?
(আপু) দুইটা সম্পর্ক হবে মানে?
(আমি) তোমার মাথার সেন্স হিউমার কম নাকি,,, একটা খালাম্মার বাড়ি দুদিন বড় হবে শ্বশুরবাড়ি,,, তাহলে সম্পর্ক দুটা হলোনা?

(আপু) লাল কুত্তা যা তুই এখান থেকে,,
(আমি) আচ্ছা ঠিক আছে যাচ্ছি?
(আপু) এই শোন এই টাকা গুলো রাখ?
(আমি) টাকা দিয়ে কি করবো?
(আপু) তুই না বললি তার কাছে টাকা নাই?
(আমি)ও হ্যা তাই তো?

আমি টাকাগুলো নিলাম গুনে দেখি 5000,,
যাক সিনিয়র রূপসী গার্লফ্রেন্ড পেলাম,,, দুদিন পরে তার বাবার টাকা পাবো,,, এখন থেকেই নেওয়া শুরু করি?

★ আমি টাকাগুলো পকেটের রাখবো,,, হঠাৎ করে ফোনটা বেজে উঠলো,,,
টুন You are not alone,,,, Another day has gone,,,I’m still all alone,,,,How could this be,,,, স্ক্রিনের দিকে তাকিয়ে দেখি,,, বন্ধু শামীমের ফোন,,, আপু বলতে শুরু করল কার ফোন? আছে,,,, এখন আমি যায়?

(আপু) যাই মানে কার ফোন আগে বলে যা?
(আমি) বন্ধু শামীমের ফোন””
(আপু) দেখি মোবাইল দেখা?

মোবাইল টা দেখালাম?
(আমি)কথায় কথায় এত সন্দেহ কর কেন,,,,
(আপু) তোদের ছেলেদের দিয়ে বিশ্বাস নেই,, একটা সুন্দরী মেয়ে পেয়েছিস তো,,, সারছে, বর্তমান প্রেমিকাকে সাবেক প্রেমিকা বানিয়ে দিবি।
(আমি) তুমি কি আমাকে সে রকম ছেলে ভাবো?
(আপু এত ভাবা ভাবি বুঝিনা,,, সোজা বাসায় যাবি তারপর খালাম্মার সাথে কথা বলবি,,, গোসল টোসল দিয়ে সোজা আমাদের বাসায় চলে আসবি,,, যদি তেরিং ফেরিং দেখি তাহলে খাইছি তোরে?

(((আরে বাবা এটা কি মেয়ে নাকি আজরাইল শাকচুন্নি একটা))))

আচ্ছা ঠিক আছে আমি এখন যাই,,,,

★ চলে আসলাম বাসায়,,, আম্মুর সাথে কথা বলে,, গোসল টোসল দিয়ে দুপুর 2 টায় রওনা দিলাম আপুর বাসায়?

যাওয়ার সাথে সাথে শাকচুন্নি দরজা খুলে দিল,,, খানার টেবিলে গিয়ে বসলাম,,, শাকচুন্নি মানে আপুও আমার সাথে বসলো,,,
হঠাৎ করে পকেটের থাকা মোবাইলটা বেজে উঠলো,,,,, মোবাইলটা পকেট থেকে খুলে দেখি রিয়ার ফোন,,,, শাকচুন্নি আপু ক্ষপ করে মোবাইলটা নিয়ে নিয়ে নিলো,,,
স্ক্রিনের দিকে তাকিয়ে দেখে রিয়ার ফোন শাকচুন্নির মাথা গরম হয়ে গিয়েছে,,,

হায় হায় মোবাইলটা নি আবার ভেংগে ফেলে,,,, সত্যি সত্যি মোবাইলটা আছাড় মারবে আমি গিয়ে হাত ধরে ফেললাম?

(আমি) তুমি কি পাগল নাকি?
(আপু) ও তোকে এমন সময় ফোন দিলো কেন?
(আমি) আমি কিভাবে বলবো?
(আপু) লুচ্চা ছেলে তলে তলে অনেক দূর এগিয়ে গেছিস?
(আমি) দেখো শুধু শুধু আজাইরা কথা বলবা না?
(আপু) কিসের আজাইরা কথা?
(আমি) সব সময় কিন্তু এগুলা ভালো লাগেনা?
(আপু)আমার কথা ভাল লাগবে কিরে,,,রিয়ার কথা তো খুব ভাল লাগে?
(আমি) দেখো তোমাকে আমি আগই বলেছি রিয়া আমার একজন ভাল বন্ধু,,
(আপু) বন্ধু নাকি ছাই,,আমি ভালো করে জানি?
(আমি)ধুরররর,,,এখানে খাবো ঐ না?

রাগ করে বেরিয়ে পড়লাম বাসা থেকে,,,,আপু অনেক বার বাধা দিয়েছি,,,
আমি চলে আসলাম,,,,সব সময় এগুলা ভালো লাগে না?

★বাসায় না গিয়ে একটা দোকানে গিয়ে,, বিস্কিট আর কলা খেলাম,,, আধাঘণ্টা ধরে দোকানে বসে আছি? হঠাৎ করে খালাম্মার ফোন,,,, ফোনটা রিসিভ করলাম?

(খালাম্মা) ফারাবী তুই কই?
(আমি) কেন?
(খালাম্মা) তাড়াতাড়ি আমাদের বাসায় আয়?
(আমি) কেন কি হইছে?
(খালাম্মা) ঈশিতা ঘরের সব জিনিসপত্র ভেঙ্গে ফেলছে?

(আমি) আচ্ছা ঠিক আছে আমি আসছি?

শাকচুন্নির এত রাগ কেন,,, এত রাগী মেয়ে তো, আমি বাপের জন্মেও দেখিনি,,,,, এই মেয়েকে বিয়ে করলে,,, আমার যে কি অবস্থা হয় আল্লাহ ভালো জানে,,,,, আবার কি সুন্দর করে প্রপোজ করেছে কবি সাহিত্যিকরাও এভাবে প্রোপোজ করতে পারবে না?

★ আমি বাইক নিয়ে তাড়াতাড়ি খালাম্মার বাসায় চলে গেলাম,, যেয়ে দেখি হাই হাই সব ভেঙ্গে তছনছ করে ফেলেছে,,, দেখি আপুর হাত দিয়ে রক্ত পড়ছে,,,, আমি তাড়াতাড়ি গিয়ে হাত ধরলাম????

(((((চলবে)))))??

নতুন ভিডিও গল্প!


Tags: , , , , , , , , ,

Comments